জর্ডানে বালির নিচে লুকানো বিশাল স্মৃতিস্তম্ভ আবিষ্কৃত
জর্ডানে বালির নিচে লুকানো বিশাল স্মৃতিস্তম্ভ আবিষ্কৃত
২০১৬-০৬-১৩ ০১:০৭:০৭
প্রিন্টঅ-অ+


দক্ষিণ জর্ডানে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থান পেত্রা। সম্প্রতি পাথর কুঁদে তৈরি মানুষের এ কীর্তির বালির নিচে চাপা পড়া একটি বিশাল স্মৃতিস্তম্ভ আবিষ্কৃত হয়েছে। এ স্মৃতিস্তম্ভ খুঁজে পেতে প্রত্নতাত্ত্বিকরা উপগ্রহ চিত্র, ড্রোন আলোকচিত্র ও ভূমি-জরিপ ব্যবহার করেছে। আমেরিকান স্কুল অব ওরিয়েন্টাল রিসার্চে প্রকাশিত এক গবেষণায় এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। খবর বিবিসি।

চাপা পড়ে থাকা স্মৃতিস্তম্ভের প্ল্যাটফর্মটি দৈর্ঘ্যে একটি অলিম্পিক সুইমিং পুলের সমান ও চওড়ায় এর দ্বিগুণ বলে প্রত্নতাত্ত্বিকদের অনুমান। গবেষকরা জানান, প্রাচীন স্থানটির আর কোনো কাঠামোর সঙ্গে এর সাদৃশ্য নেই।

আবিষ্কারটি সবার চোখের সামনেই লুকিয়ে ছিল বলে গবেষণা পত্রটি এবং মার্কিন বৈদেশিক গবেষণা কেন্দ্র কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক ক্রিস্টোফার টোটল উল্লেখ করেছে। তিনি বলেন, কয়েক দশক ধরে প্রত্নতাত্ত্বিক খননের মধ্যে এটির এখানে থাকার কথা কেউ উল্লেখ করেনি।

প্রত্নতাত্ত্বিক হিসাব অনুসারে, খ্রিষ্টপূর্ব ৪’শ শতাব্দিতে পেত্রা নির্মিত হয়। বর্তমানের জর্ডান, ইরাক, সিরিয়া ও লেবাননে গড়ে উঠা নাবাতায়েন সভ্যতার হাতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে পেত্রা। পৃষ্ঠতলে প্রাপ্ত মৃিশল্প নির্দেশ করছে, প্ল্যাটফর্মটি খিষ্ট্রপূর্ব দ্বিশতকের মাঝামাঝি তৈরি হয়েছে, যখন পেত্রা উন্নতির চূড়ায় অবস্থান করছিল। আনুষ্ঠানিক উদ্দেশ্যে কাঠামোটি তৈরি করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বড় প্ল্যাটফর্মটির ভেতরে আরেকটি ছোট প্ল্যাটফর্ম রয়েছে বলে জরিপে জানা গেছে। এ প্ল্যাটফর্মটির এক দিকে একরেখায় কলাম যুক্ত রয়েছে আর অন্যদিকে সুবিশাল সিঁড়ি রয়েছে।

প্রতি বছর কয়েক হাজার পর্যটক পেত্রা দেখতে আসেন। স্যান্ডস্টোন কুঁদে তৈরি ভবনের জন্য পেত্রা প্রসিদ্ধ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর