আগামী একমাস বিশ্ব ফুটবল মাতাবে ইউরোপ
আগামী একমাস বিশ্ব ফুটবল মাতাবে ইউরোপ
২০১৬-০৬-১১ ০০:১৫:৫২
প্রিন্টঅ-অ+


না খেললেও নিজ নিজ দেশের হয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন লিওনেল মেসি-লুইস সুয়ারেজ-হামেশ রদ্রিগেজরা। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো-গ্যারেথ বেল-জল্গাতান ইব্রাহিমোভিচরা কি অফ-সিজন কাটাবেন?

লাতিন আমেরিকার মতো ফুটবল উৎসব শুরু হয়ে যাচ্ছে এবার ইউরোপেও। নামে-ভারে ফিফা বিশ্বকাপের পর দ্বিতীয় বৃহত্তম আয়োজন ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ে নামছে উয়েফার ২৪টি দেশ। এক মাসের এ ফুটবল উৎসবের শুরুটা হচ্ছে আজকের ফ্রান্স-রোমানিয়া ম্যাচ দিয়ে।

তবে ফুটবলীয় এ উৎসবে আছে শঙ্কার ছায়াও। মাঠের খেলা নিয়ে ফুটবলার-কোচ-কর্মকর্তাদের ভাবনা যতটা, তার চেয়ে বেশি নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা ফ্রান্স সরকারের। গত নভেম্বরে প্যারিসে স্টেডিয়ামের বাইরে হামলার পর থেকে ইউরোর আয়োজন নিয়ে উদ্বেগ আছে। সাম্প্রতিক সময়ে হামলার পরিকল্পনাকারী গ্রেফতার ও যুক্তরাষ্ট্রের ভ্রমণ সতর্কতা জারির ঘটনায় সে উদ্বেগ আরও বেড়েছে; ফ্রান্স সরকারও তাই নভেম্বরে জারি করা জরুরি অবস্থা ইউরোর শেষ পর্যন্ত বজায় রেখেছে। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দশটি ভেন্যু ও সমর্থক জোনগুলোতে নিয়োজিত করা হয়েছে নব্বই হাজারের বেশি নিরাপত্তাকর্মী।

তবে নিরাপত্তা ইস্যু ছাপিয়ে নিখাদ ফুটবল দর্শকের মনোযোগের কেন্দ্রে শুধুই মাঠের ফুটবল। যেখানে প্রথমবারের মতো ষোলো দলের পরিবর্তে লড়ছে ২৪ দল। চার দলে ভাগ হওয়া প্রতি গ্রুপ থেকে শীর্ষ দুই দল ছাড়াও সব গ্রুপ মিলিয়ে তৃতীয় স্থানে সেরা দুই দল খেলবে দ্বিতীয় রাউন্ডে। স্বাগতিক ফ্রান্সের পাশাপাশি শিরোপার সম্ভাব্য দাবিদার হিসেবে ভাবা হচ্ছে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি, গত দুই ইউরোর চ্যাম্পিয়ন স্পেন এবং ফিফা র‌্যাংকিংয়ের দুইয়ে থাকা বেলজিয়ামকে। এ ছাড়া শিরোপা দৌড়ে আছে ওয়েন রুনির ইংল্যান্ড, রোনালদোর পর্তুগাল ও ইব্রাহিমোভিচের সুইডেন।

কাগজে-কলমে সবচেয়ে এগিয়ে স্বাগতিক ফ্রান্স। আর সেটা স্বাগতিক হওয়ার কারণেই। ফ্রান্স সর্বশেষবার ইউরো আয়োজন করেছিল ১৯৮৪ সালে। সেবার প্যারিস থেকে শিরোপা আর কেউ নিয়ে যেতে পারেনি। কয়েক মাস আগে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে প্রশাসক হিসেবে নিষিদ্ধ হওয়া মিশেল প্লাতিনি ওই আসরে নয় গোল করে ফ্রান্সকে শিরোপা জেতান। এক আসরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলের কীর্তি প্লাতিনিরই। ১৯৯৮ সালের ফিফা বিশ্বকাপেরও আয়োজক ছিল ফ্রান্স। জিনেদিন জিদানের দলও নিজেদের দেশেই রেখে দেয় শিরোপা। এবার দিদিয়ের দেশম্পের দলে রিয়াল মাদ্রিদ তারকা করিম বেনজেমা না থাকলেও অ্যাথলেটিকোর অ্যান্থনি গ্রিজম্যান আর জুভেন্টাসের পল পগবায় আস্থা রাখছে ফ্রান্স। নকআউট পর্বে পরীক্ষার সম্মুখীন হওয়ার আগে গ্রুপ পর্ব সহজেই উতরে যাওয়ার কথা ফরাসিদের। গ্রুপ এ রোমানিয়া ছাড়া অন্য প্রতিপক্ষ আলবেনিয়া ও সুইজারল্যান্ড। ছয় গ্রুপের মধ্যে মৃত্যুকূপ ধরা হচ্ছে গ্রুপ ইকে। ইউরোর দলগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ র‌্যাংকিং নিয়ে খেলতে নামা বেলজিয়ামের গ্রুপে আছে ইতালি, সুইডেন ও আয়ারল্যান্ড। এ ছাড়া অন্যান্য গ্রুপ থেকে সম্ভাব্য সেরা দুই হচ্ছে :বি গ্রুপ থেকে ইংল্যান্ড-ওয়েলস, সি গ্রুপ থেকে জার্মানি-পোল্যান্ড, গ্রুপ ডি থেকে স্পেন-ক্রোয়েশিয়া এবং গ্রুপ এফ থেকে পর্তুগাল-অস্ট্রিয়া।

আট দল বেড়ে যাওয়ায় এবার নতুন চারটি দল প্রথমবারের মতো ইউরোয় খেলতে এসেছে। দলগুলো হচ্ছে_ আইসল্যান্ড, নর্দান আয়ারল্যান্ড, ওয়েলস ও আলবেনিয়া। বিস্ময়কর হচ্ছে, বাছাইপর্ব উতরাতে না পারায় চবি্বশ দলের মধ্যে জায়গা করতে পারেনি ২০১০ বিশ্বকাপের রানার্সআপ নেদারল্যান্ডস।

তবে ডাচ ফুটবলের অনুপস্থিতি ছাড়া ফুটবলের বাকি সব রোমাঞ্চ-উত্তেজনার পসরা নিয়েই আসছে ইউরো। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১০টা ও ১টা থেকে আগামী একমাস বিশ্ব ফুটবল মাতাবে ইউরোপ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

ক্রীড়া এর অারো খবর