ভাঙা টাইলসের পরিবেশ-বান্ধব ব্যবহার উদ্ভাবন করলেন প্রকৌশলী আমিরুল ইসলাম
ভাঙা টাইলসের পরিবেশ-বান্ধব ব্যবহার উদ্ভাবন করলেন প্রকৌশলী আমিরুল ইসলাম
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৬-০৯ ১৫:০৩:৫১
প্রিন্টঅ-অ+


উন্মুক্ত স্থান, সুবিধাজনক যোগাযোগে ব্যবস্থা এবং পানি বিদ্যুৎ গ্যাস ইত্যাদির সহজলভ্যতার কারনে ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলা গাজীপুরে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন শিল্পের অসংখ্য কলকারখানা। এটি বর্তমানে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম শিল্পাঞ্চল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। আর এসব কলকারখানার মধ্যে গার্মেন্টস শিল্পের কারখানার সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এসব কারখানা হতে পরিত্যক্ত ঝুঁট এবং পলিথিন যে পরিবেশ দূষণের অন্যতম কারন তা সকলেরই জানা। কিন্তু সম্প্রতি এই দূষণের মাত্রা আরও তীব্র হচ্ছে আরেকটি উপাদানের কারনে। সেটি হল ভাঙা টাইলস।

বর্তমানে সারাদেশে ৬০ টির মত সিরামিক কারখানা রয়েছে। যার মধ্যে শুধু গাজীপুরেই রয়েছে ৩০ টির বেশি কারখানা। এসব কারখানা থেকে প্রতি বছর প্রায় ১০ হাজার টন ভাঙা টাইলস অব্যবহৃত হিসেবে অবশিষ্ট থাকে। যেগুলো নিক্ষিপ্ত হয় কারখানার আশেপাশের বনভূমি, জলাধার এমনকি আবাদি জমিতেও। যেহেতু টাইলস পলিথিনের মতই অপচনশিল তাই অপরিকল্পিতভাবে অব্যবহৃত এসব টাইলস নিক্ষেপের ফলে পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি হ্রাস পাচ্ছে আবাদি জমির উর্বরতা।

এই সমস্যার আশু সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছেন গাজীপুর এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আমিরুল ইসলাম খান। তিনি গবেষণা করে দেখেছেন যে, রাস্তার নিচে কন্সট্রাকশন কাজে ব্যবহৃত খোয়ার তুলনায় ভাঙা টাইলসের কার্যকারিতা বেশি। তিনি বলেন, “রাস্তার নিচের স্তরে ইটের খোয়ার পরিবর্তে ভাঙা সিরামিক ব্যবহার করা হলে প্রতি বছর ২০ থেকে ২২ কিলোমিটার রাস্তার সাব-বেজ করা সম্ভব। পাশাপাশি ভাঙা সিরামিক সিসি ঢালাইয়ের কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে যেমন একদিকে পরিবেশকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করা যাবে অপরদিকে প্রতিবছর প্রায় ২০ লাখ ইটের ব্যবহার কমে যাবে। এতে ইট তৈরির সময় যে মাত্রাতিরিক্ত কার্বন নিঃসরিত হয় তা হতেও রক্ষা পাবে পরিবেশ”

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর