নির্দিষ্ট সময়ে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র সরবরাহ নিয়ে শঙ্কা
নির্দিষ্ট সময়ে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র সরবরাহ নিয়ে শঙ্কা
২০১৬-০৫-২৮ ২০:২৮:২০
প্রিন্টঅ-অ+


বহুল কাঙ্খিত স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নির্দিষ্ট সময়ে সরবরাহ করা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে প্রকল্পটিতে অর্থযোগানকারী সংস্থা বিশ্বব্যাংক।

সম্প্রতি এনআইডি প্রকল্প নিয়ে ব্যাংকটিতে অনুষ্ঠিত রিভিউ মিটিংয়ে এ শঙ্কা প্রকাশ করা হয়। তাই প্রকল্পটির কার্যকারিতা বাড়াতে গত ১৯ মে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) নির্বাচন কমিশন সচিব (ইসি) একটি চিঠি দিয়েছে।

ইআরডির সিনিয়র সহকারী সচিব মোহাম্মদ খালেদ উর রহমানের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে- গত ১১ ও ১২ মে বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিসে একটি রিভিউ মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইআরডি, ইসি, এনআইডি (আইডিইএ) প্রকল্প ও বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে আলোচনা হয়, ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত এনআইডি সরবরাহ শুরু হয়নি। তাই যথাসময়ে কার্ড বিতরণ নিয়ে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
তাই চিঠিতে অবশিষ্ট সময়ে মধ্যে কার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিতেও বলেছে ইআরডি।

এদিকে, কারিগরি ত্রুটির কারণে চার মাস কার্ড উৎপাদন বন্ধ ছিল, এনআইডি পরিচালক বৈঠকে এমন তথ্য দিয়েছেন বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

যদিও এনআইডি পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মোহাম্মদ সালেহ উদ্দীন বারবার গণমাধ্যমের কাছে বলেছেন, কার্ড উৎপাদন অব্যাহত রয়েছে। শিগগিরই তা বিতরণ করা হবে।
এনআইডি পরিচালক এনআইডি সংক্রান্ত কাজে আবারো ফ্রান্স গিয়েছেন। স্মার্ট কার্ড উৎপাদনের জন্য ফ্রান্সের একটি কোম্পানিকে কাজ দিয়েছে ইসি।

এ অবস্থায় বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দল আইডিইএ প্রকল্প পরিদর্শনে আগামী ৮ জুন দেশে আসছে। তারা ১৬ জুন পর্যন্ত দেশে অবস্থান কালে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গেও বৈঠক করবে।

২০১১ সালে বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় দেশের নাগরিকদের স্মার্ট কার্ড সরবরাহের জন্য আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর অ্যানহেন্সিং অ্যাকসেস টু সার্ভিস (আইডিইএ) প্রকল্পটি হাতে নেয় ইসি।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর