পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতিতে শতাধিক পরিবার পানিবন্দী
পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতিতে শতাধিক পরিবার পানিবন্দী
২০১৬-০৫-০৭ ০২:২৯:৩৬
প্রিন্টঅ-অ+


সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় প্রবল জোয়ারের চাপে গতকাল শুক্রবার কপোতাক্ষ নদের বেড়িবাঁধের অংশবিশেষ ভেঙে দেড় শতাধিক পরিবার ও একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। পানিতে তলিয়ে গেছে শতাধিক চিংড়িঘের ও ফসলি জমি।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ভুক্তভোগী ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের চাকলা গ্রামসংলগ্ন বাঁধটি আগে থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। গতকাল ভোরে বাঁধের প্রায় ৫০ ফুট নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এতে চাকলা দাখিল মাদ্রাসা এবং গ্রামটির দেড় শতাধিক পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। গ্রামের শতাধিক মৎস্যঘের ও বিস্তীর্ণ ফসলি জমি তলিয়ে গেছে।

চাকলা গ্রামের বাসিন্দা রাজ্জাক ঢালী বলেন, অনেক দিন ধরেই বাঁধে অল্পস্বল্প ভাঙন চলছিল। গতকাল ভোরে বাঁধের কিছু অংশ ভেঙে পুরো গ্রাম প্লাবিত হয়। তাঁদের বাড়ির উঠানে এখন পানি থইথই করছে। বাঁধ মেরামত করে পানি ঢোকা এখনই বন্ধ করা না গেলে তাঁদের বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিতে হবে।

প্রতাপনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য গোলাম রসুল বলেন, হঠাৎ করেই বাঁধ ধসে পড়ে। পরে নদীতে ভাটার টান শুরু হলে এলাকার দুই শতাধিক মানুষ বাঁশ ও মাটি দিয়ে বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজ শুরু করেন। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান।

প্রতাপনগর ইউপির চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতির কারণেই ইউনিয়নবাসীর এই দুর্দশা। বারবার বলা সত্ত্বেও পানি উন্নয়ন বোর্ড ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধটি সংস্কারে কোনো উদ্যোগ নেয়নি। মেরামতের জন্য যা বরাদ্দ আসে, তা তারা লুটপাট করে খেয়ে ফেলে। কিন্তু গতকাল বিকেল চারটা পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের কেউই ভাঙনকবলিত এলাকায় আসেননি।

বেড়িবাঁধটি আগে থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ ছিল বলে স্বীকার করেন সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিভাগ-২-এর নির্বাহী প্রকৌশলী অপূর্ব কুমার ভৌমিক। তিনি বলেন, কপোতাক্ষ নদের চাকলা এলাকার বাঁধটি সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যে ঠিকাদার নিযুক্ত করা হয়েছে। ঠিকাদার কাজ শুরুও করেছেন। দ্রুত সেটি মেরামত করতে ঠিকাদারকে বলা হয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

পরিবেশ এর অারো খবর