কলাবাগানে বাসায় ঢুকে দীপু মনির খালাতো ভাইসহ দুজনকে কুপিয়ে হত্যা
কলাবাগানে বাসায় ঢুকে দীপু মনির খালাতো ভাইসহ দুজনকে কুপিয়ে হত্যা
২০১৬-০৪-২৬ ০১:৩৬:৩৮
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানীর কলাবাগানে সোমবার সন্ধ্যায় বাসায় ঢুকে ২ জনকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। একই ঘটনায় বাড়ির নিরাপত্তা কর্মীসহ আহত হয়েছেন আরও ২ জন।

নিহতদের একজন বাংলাদেশে ইউএসএইডের কর্মকর্তা ও মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাবেক প্রটোকল অফিসার জুলহাজ মান্নান (৩৫)। তিনি সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির আপন খালাতো ভাই। অপরজন তার বন্ধু মাহবুব তনয়। কলাবাগানের তেঁতুলতলা গলির আছিয়া নিবাস নামের ৩৫ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয় তলায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত জুলহাজ বাংলাদেশে প্রকাশিত প্রথম সমকামীদের পত্রিকা ‘রূপবান’ এর সম্পাদক ছিলেন বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

কলাবাগান থানার এএসআই হাবিবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, নিহত জুলহাজ মান্নান সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনির আপন খালাতো ভাই। হামলাকারীরা সংখ্যা ছিলেন পাঁচজন। গায়ে নেভি ব্লু টি-শার্ট ও প্রত্যেকের কাঁধে ছিল ব্যাগ। বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে বলে জানতে পারেন তারা।

প্রত্যক্ষ্যদর্শী রাকীব হাওলাদার জানান, হামলাকারীরা যাওয়ার সময় নারায়ে তাকবির, আল্লাহু আকবর স্লোগান দিয়ে বেরিয়ে যায়। একজনের হাতে পিস্তলও দেখেছেন তারা। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় স্থানীয়রা তাদের ধাওয়া করেন। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাদের চাপাতি ও পিস্তলের ভয় দেখিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। তাদের হামলায় একজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

রাকীব হাওলাদার আরও জানান, দুর্বৃত্তদের দেখে মনে হয়েছে তারা মার্কেটিংয়ে চাকরি করেন। তাদের মধ্যে তিনজনের বয়স ১৮ থেকে ২২ বছরের মধ্যে। অন্য দু’জনের বয়স আনুমানিক ৩০ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে।

প্রত্যক্ষদর্শী কিশোর স্বাধীন সাংবাদিকদের জানান, বিকালে চার-পাঁচজন লোককে ভবনের নিরাপত্তা কর্মীকে বলতে শুনেছেন, তারা কুরিয়ার সার্ভিস থেকে এসেছেন। তাদের সঙ্গে দু’টি কার্টনও ছিল।

ওই ভবনের নিরাপত্তা কর্মী পারভেজ মোল্লা জানান, কয়েকজন লোক কুরিয়ারের পার্সেল আছে বলে বাসায় ঢুকতে চান। তিনি তাদের গেটে দাঁড় করিয়ে দ্বিতীয় তলায় জুলহাজ সাহেবের ফ্ল্যাটে যান। এ সময় হামলাকারীরাও তার পিছে পিছে দ্বিতীয় তলায় যান। তাদের বাধা দিলে তাকেও চাপাতি দিয়ে আঘাত করে। গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত মজিনার সঙ্গে জুলহাসকলাবাগান থানার এস আই আনসার আলী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, নিহতদের মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত আছে। একজনকে বেডরুমে, আরেকজনকে ডাইনিং রুমে হত্যা করা হয়। ঘটনার সময় জুলহাজের মা ছখিনা বেগম ঘুমিয়ে ছিলেন। আর গৃহকর্মী রান্নাঘরে ছিলেন।

তিনি জানান, সন্দেহজনক গতিবিধির কারণে ডলফিন গলিতে টহল পুলিশ খুনিদের আটকানোর চেষ্টা করে। সে সময় এএসআই মমতাজ হোসেনকে তারা চাপাতি দিয়ে কোপ দেয়।
খবর পেয়ে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, উপ-কমিশনার আবদুল বাতেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান।

পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, নিহত জুলহাজ মান্নান দেশের সমকামীদের পত্রিকা ‘রূপবান’ এর সম্পাদক ছিলেন।
গত পহেলা বৈশাখে সমকামীরা টিএসসি এলাকা থেকে একটি র‌্যালি বের করার চেষ্টা করে। তখন পুলিশ তাদের চারজনকে আটক করে। ওইদিন রাতেই স্বজনদের জিম্মায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

রাত সাড়ে ৯টায় ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, জুলহাজ মান্নান ও মাহবুব তনয় হত্যাকাণ্ড একটি টার্গেট কিলিং। খুনিরা তাদের হত্যা করে পালিয়ে যায়। পালানোর সময় কলাবাগান থানার টহল পুলিশ ধরার চেষ্টা করেছিল। তখন তাদের হামলায় এক পুলিশ সদস্য আহত হন।

কী কারণে এ হত্যাকাণ্ড- এমন প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, বিভিন্ন কারণে এ হত্যাকাণ্ড হতে পারে। ব্যক্তিগত ও লেনদেন সংক্রান্তেও হতে পারে। জঙ্গিরাও এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। থানা পুলিশ, ডিবি, সিআইডিসহ বিভিন্ন সংস্থার গোয়েন্দারা তদন্ত শুরু করেছেন।

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, ইতোমধ্যে ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে। খুব শিগগির খুনিদের শনাক্ত করে গ্রেফতারের পর আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। তখন হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণও জানা যাবে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর