‘২০২১ সালে আইসিটিতে কর্মসংস্থান হবে ২০ লাখ’
‘২০২১ সালে আইসিটিতে কর্মসংস্থান হবে ২০ লাখ’
২০১৬-০৪-২৪ ০৪:১৮:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+


আইসিটি সেক্টর থেকে আগামী ২০২১ সালের মধ্যে ৫ বিলিয়ন ডলার রফতানির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ ও একই সময়ের মধ্যে আইটি পেশাজীবীদের সংখ্যা ২০ লাখে উন্নীত করার কথা জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শনিবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন বিসিসি’র ‘আইসিটি ফর গ্রোথ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স (এলআইসিটি) প্রকল্প এ ক্যাম্পের আয়োজন করে।
উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের লক্ষ্য ২০২১ সাল নাগাদ ৫ বিলিয়ন ডলার আইসিটি সেক্টর থেকে রফতানি করবো এবং এতে বর্তমানে ১০ লাখ তরুণ-তরুণী কাজ করছেন। আমরা এ সেক্টরে ২০২১ সাল নাগাদ আরও নতুন করে ১০ লাখসহ মোট ২০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে চাই।

এছাড়া আগামী তিন বছরে এক লাখ এবং পরবর্তী দুই বছরে আরও এক লাখসহ ২০২১ সাল নাগাদ দুই লাখ তুরুণ-তরুণীকে আইসিটি বিভাগ থেকে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, দেশে ক্লাস ওয়ান থেকে উচ্চ পর্যায় পযন্ত প্রায় সাড়ে তিন কোটি ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করছে, যা অনেক দেশের মোট জনসংখ্যার চেয়েও বেশি। আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে, তাদেরকে প্রশিক্ষিত জনসম্পদে রূপান্তরিত করা।
সে লক্ষ্য বাস্তায়ন ও ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকল্প বিনির্মাণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে ও পরামর্শে আইসিটি বিভাগ কয়েকটি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।
পলক বলেন, দেশে ১১ কোটি তরুণ-তরুণী, যাদের ৭০ শতাংশের বয়স ৩৫ বছরের নিচে, তাদেরকে আইটি সেক্টরে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে দিতে চাই। যাতে তারা সারা জীবন স্বচ্ছলভাবে ও আত্মমর্যাদা নিয়ে জীবন যাপন করতে পারেন, সেটিই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।

তরুণ-তরুণীদের উদ্দেশ্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ প্রশিক্ষণের মূল লক্ষ্য হচ্ছে, আপনাদের ভবিষ্যৎকে নিশ্চিত করা। গত ৩০ বছরে তৈরি পোশাক খাতে ৬০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হয়েছে। আমরা দ্বিতীয় বৃহত্তম গার্মেন্টস পণ্য রফতানিকারক দেশ হয়েছি।

কিন্তু সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হলো, আমরা সবাই কায়িক শ্রম দিচ্ছি, ব্যবস্থাপনার পর্যায়ে যেতে পারিনি। দেশের বাইরে থেকে এসে গার্মেন্টস সেক্টরে নেতৃত্ব দিচ্ছে।

তিনি বলেন, আগামী ৫, ১০ বা ২০ বছরে বাংলাদেশকে আইসিটি সেক্টরে বিশ্বের অন্যতম সফল দেশ হিসেবে তৈরি করতে চাই। তখন একেবারে ফাউন্ডেশন পর্যায় থেকে শুরু করে নেতৃত্ব বা ব্যবস্থাপনা পর্যায়ে প্রতিটি কোম্পানিতে যেন বাংলাদেশের তরুণ-তরুণীরা থাকেন সেটিই আমাদের লক্ষ্য।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জানান, আগামী তিন বছরে এলআইসিটি প্রকল্পের আওতায় ৪৪ হাজার তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। আজ যে আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প শুরু হচ্ছে, তা দেশের ১২৯টি বিশ্ববিদ্যালয় ও ৬৪টি জেলায় অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার। মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের সিইও সুপুন ওয়েরাসিংগেও অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর