গরমের তীব্রতা আরও বাড়বে
গরমের তীব্রতা আরও বাড়বে
২০১৬-০৪-১২ ০৬:৪৬:৪৩
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে চলতে থাকা গরমের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে। খরতাপ কমপক্ষে আরো এক সপ্তাহ চলতে থাকবে। এসময় তেমন কোনো বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনাও নেই। অসহ্য খরতপ্ত হয়ে উঠতে পারে আগামী বৃহস্পতিবার পহেলা বৈশাখের দিনটিতেও।

এপ্রিল মাসে রীতিমতো খরাই যাচ্ছে। একমাত্র সিলেট ছাড়া বৃষ্টি-শূণ্য পুরো দেশ। গত ১০ দিনে ঢাকার বুকে বৃষ্টির ছিটেফোঁটাও পড়ছে না। সিলেট অঞ্চলে যৎসামান্য যে বৃষ্টি হয়েছে, তা-ও কালবৈশাখীকে সঙ্গী করে। বৃষ্টির জন্য চাতক পাখির মতো তাকিয়ে আছে রাজধানী তো বটেই, সারা দেশ। ইতিমধ্যে তাপমাত্রা ৩৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এপ্রিলেই তা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে।

সোমবার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এদিকে কুষ্টিয়া অঞ্চলের উপর দিয়ে তীত্র তাপপ্রবাহ এবং রংপুর, দিনাজপুর, সৈয়দপুর, ঢাকা, টাঙ্গাইল ও ফরিদপুর অঞ্চলসহ রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের বাকী অংশের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় বিস্তার লাভ করতে পারে।

তবে সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত: শুস্ক থাকতে পারে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এ মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ খোরশেদ আলম জানান, নিয়মিত কালবৈশাখী ও বৃষ্টিপাত শুরু না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা কমবে না। এ বছর আবহাওয়া কিছুটা বৈরী উল্লখে করে তিনি বলেন, এ সময়টা মৃদু ও মাঝারি তাপদাহ সাধারণ ঘটনা। এটা প্রতি বছরই ঘটে। তবে গরম এত তীব্র হয় না। কিন্তু এ বছর তা সহ্যক্ষমতা ছাড়িয়ে গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের এপ্রিল মাসের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এপ্রিলে গরম যেমন দাপট দেখাবে, তেমনি ঝড়-বৃষ্টি আর নিম্নচাপও থাকবে। এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। এ মাসে প্রায় ১৬ দিন সিলেট বিভাগে বৃষ্টি হতে পারে। সেখানে ৩০০ থেকে ৩৭০ মিলিমিটার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ঢাকা বিভাগে আট থেকে ১০ দিনে ১৪০ থেকে ১৮০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া বঙ্গোপসাগরে এক-দুটি নিম্নচাপ সৃষ্টি পারে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

পরিবেশ এর অারো খবর