বায়োমেট্রিকের অপপ্রচারে ৪০টি পেজ
বায়োমেট্রিকের অপপ্রচারে ৪০টি পেজ
২০১৬-০৪-১০ ১৮:০৩:২৭
প্রিন্টঅ-অ+


অনলাইনে ৪০টি পেজ থেকে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টে‌লিযোগাযোগ প্র‌তিমন্ত্রী তারানা হা‌লিম।

এ অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলে মোকাবিলার কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।
মোবাইলের মাধ্যমে অপরাধ সংগঠন এড়াতে গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর থেকে আঙুলের ছাপ বা বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের উদ্যোগ নেয় সরকার।

এ প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে বলা হচ্ছে, গ্রাহকের আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হচ্ছে এবং পরবর্তীতে সেগুলো ব্যবহার করা হবে।

রোববার (১০ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, শুরু থেকেই অনুমান করছিলাম যে এ ধরনের প্রোপাগাণ্ডা আসবে; যারা অবৈধ ভিওআইপি করে, সন্ত্রাস করে তাদের কাছে।

যখনই সরকার একটা ভালো কাজ করে, রাজপথে যে বিরোধী দল আছে, অপপ্রচার চালায়। এটি একটি নেতিবাচক রাজনৈতিক কালচার, এর পরিবর্তন প্রয়োজন।

তারানা হালিম বলেন, আমরা দেখেছি অপপ্রচারটি কাদের কাছ থেকে আসছে, জামায়াত-শিবির ও বিএনপি এবং যারা অবৈধ ভিওআইপি করে তারা এ প্রক্রিয়ার বিরোধীতা করছেন। তারা প্রায় ৪০টি রেজিস্ট্রিবিহীন অনলাইন পেজ খুলে যুক্তরাজ্য (ইউকে) থেকে বিভিন্নভাবে পোস্ট দিচ্ছেন এবং মনিটর করছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ অপপ্রচারের বিরুদ্ধে কোনো আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ নেইনি, তথ্য মন্ত্রণালয়কে অভিযোগ জানাইনি, আমরা মনে করি মানুষের বাক স্বাধীনতা আছে, তাদের মোকাবেলা করার জন্য বৈধ পথ বেছে নিয়েছি, সামাজিক আন্দোলন করা হয়েছে।

‘আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হচ্ছে না, আমরা বিজ্ঞাপন দিয়েছি। তবে আমাদের মানসিকতা রয়েছে আমরা নেতিবাচক সংবাদ নিয়ে বেশি চর্চা করি।’

প্রতিমন্ত্রী বাংলানিউজকে বলেন, ফেসবুকে বিভিন্ন পেজ এবং বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল থেকে এসব প্রোপাগাণ্ডা চালানো হচ্ছে। আমরা মানুষের বাক স্বাধীনতা হরণ করতে চাই না, সামাজিকভাবে মোকাবেলা করতে চাই।

আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে বায়োমেট্রিক তথা আঙুলের ছাপ পদ্ধতিতে সিমের তথ্য ভেরিফিকেশন না করলে সেই সিমগুলো পর্যায়ক্রমে বন্ধ করে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তারানা হালিম।

বায়োমেট্রিক পদ্ধ‌তিতে সিম নিবন্ধনে উদ্বুদ্ধ করতে বাংলা‌লিংকের আয়োজনে রোড-শো শেষে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী জানান, গত ৩ এপ্রিল পর্যন্ত পাঁচ লাখ ৪৫ হাজার সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন হয়েছে।

বায়োমেট্রিক পদ্ধদ্ধিতে সিম নিবন্ধনে সচেতনতা বাড়াতে দেশের ৬৪ জেলায় রোড শো’র আয়োজন করে বাংলালিংক। এমন উদ্যোগ গ্রহণে অন্যান্য অপারেটরদেরও বলেন প্রতিমন্ত্রী।
সংবাদ সম্মেলনে টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী বলেন, সিম অপব্যবহারের শিকার অনেকেই হয়েছেন। একটি পক্ষ বিরোধীতা করছে, তবে সবাই ভেরিফিকেশনের পক্ষে। যারা বুঝছেন তাদের ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে, ভবিষ্যত অন্ধকার, তারা অপপ্রচার চালাচ্ছে, তারা অনেক শক্তিশালী।

তবে ভেরিফিকেশনের পর কোনো সিম থেকে হুমকি দিলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী শনাক্ত করতে পারবে বলে জানান সচিব।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, যারা অপপ্রচার চালাচ্ছেন তারা দেশের শত্রু, জনগণের শত্রু। আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হচ্ছে- এটা ভ্রান্ত ধারণা। আমরা গ্রাহকের নিরাপত্তা দিতে চাই, সিম ভেরিফিকেশনের কোনো অপপ্রচারে কান দেবেন না।
বিটিআরসি ভাইস চেয়ারম্যান আহসান হাবিব খান, বাংলালিংকের সিসিও শিহাব আহমেদ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর