অনলাইনে অস্ত্র বিক্রি হচ্ছে লিবিয়ায়
অনলাইনে অস্ত্র বিক্রি হচ্ছে লিবিয়ায়
২০১৬-০৪-১০ ১৪:১৯:০৫
প্রিন্টঅ-অ+


লিবিয়ায় অস্ত্র বেচাকেনার জন্য ফেইসবুক এবং অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে সম্প্রতি এক জরিপে এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

আর্মামেন্ট রিসার্চ সার্ভিসেস (ARES) নামে এক প্রতিষ্ঠানের গবেষণায় প্রকাশ করা হয়, লিবিয়ায় অনলাইনে অস্ত্র বাণিজ্য বেড়েই চলছে। ফেইসবুকের কিছু সীমিত গ্রুপ এবং হোয়াটসঅ্যাপের পাশাপাশি ইনস্টাগ্রাম এবং টেলিগ্রামও এই অস্ত্র বাণিজ্যের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে বলে জানায় সিএনএন।

এআরইএস লিবায়ায় কিছু দলগত এবং ব্যক্তি পর্যায়ের অনলাইন অস্ত্র ব্যবসায়ীর খোঁজ পেয়েছে, যারা এক বছরে ১৩৪৬টি অস্ত্র অবৈধভাবে বিক্রি করেছে।

এআরইএস এর পরিচালক এন. আর. জেনজেন জোন্স জানান, অস্ত্র পাচারকারীরা কীভাবে অনলাইনে অস্ত্র বাণিজ্য চালায় প্রতিবেদনটিতে তার একটি অংশ তুলে ধরা হয়েছে মাত্র। তিনি আরও জানান, এআরইএস এর সংগৃহীত তথ্যমতে সিরিয়া, ইরাক এবং ইয়েমেনের মত সংঘাতময় স্থানেও একইভাবে অস্ত্র বাণিজ্য চলছে।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে আরও বলা হয় শুধু ছোট অস্ত্রই অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে না। নিউ ইয়র্ক টাইমস এর একটি গবেষণায় পাওয়া যায় ভারী মেশিন গান, রকেট নিক্ষেপক, গ্রেনেড নিক্ষেপক, ট্যাংক ধংসকারী অস্ত্র এবং বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার অস্ত্রও বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে।

এ বছরের ৭ এপ্রিল প্রকাশিত ওই গবেষণায় বলা হয়, বেশীরভাগ বিক্রয়ই সেনাবাহিনী এবং অন্যান্য অস্ত্রের দল দ্বারা হয়ে থাকে। তারা অস্ত্র কিনতে অথবা অব্যবহৃত অস্ত্রের মীমাংসা করতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ব্যবহার করে থাকে বলেও জানায় সিএনএন।
ওই গবেষণায় আরও জানানো হয়, গাদ্দাফির শাসনামলে অস্ত্র বাণিজ্যের উপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ ছিল। কিন্তু ২০১১ সালে পট পরিবর্তনের পর অস্ত্রভাণ্ডারে অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীরা হানা দেয় এবং সেটি কালোবাজারিতে ভরে যায়।

গত কয়েক বছরে ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার কারণে অনলাইনে অস্ত্রের কালোবাজারি বেড়ে গেছে। অনলাইনের অস্ত্র ব্যবসা থামাতে ফেইসবুক এবং ইনস্টাগ্রাম জানুয়ারিতে তাদের সাইটে ব্যক্তিগত পর্যায়ে অস্ত্রের কেনাবেচা নিষিদ্ধ করেছে।

ফেইসবুক সিএনএন-কে জানায়, “আমরা এরকম কোনো বিষয় পেলে তা দ্রুত মুছে ফেলি। আমরা মানুষকে উদ্বুদ্ধ করি এ রকম কোনো বিষয় নজরে আসলে তা রিপোর্ট করার জন্য যেন আমাদের বিশেষজ্ঞ দল দ্রুত ব্যাপারটি খতিয়ে দেখতে পারে”।

এ রকম অভিযোগ পাওয়া কয়েকটি গ্রুপ ফেইসবুক ইতিমধ্যে বন্ধ করে দিয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর