স্বয়ংক্রিয় ডিএনএ পরীক্ষাগার যুক্তরাজ্যে
স্বয়ংক্রিয় ডিএনএ পরীক্ষাগার যুক্তরাজ্যে
২০১৬-০৪-০৯ ১৩:১৯:১৫
প্রিন্টঅ-অ+


ক্তরাজ্যে একটি স্বয়ংক্রিয় ডিএনএ পরীক্ষাগার চালু হয়েছে। এতে বাণিজ্যিক ও গবেষণাকাজে ব্যবহারের জন্য কৃত্রিমভাবে ডিএনএ উৎপাদন করা হবে।

যুক্তরাজ্যের দক্ষিণ কেনসিংটন-এ লন্ডন ইমপেরিয়াল কলেজ-এ ২০ লক্ষ ইউরো ব্যয়ে এই পরীক্ষাগার চালু হয়েছে।

স্বয়ংক্রিয় এই পরীক্ষাগার একই সঙ্গে হাজার হাজার পরীক্ষা চালাতে পারে। এতে গবেষকদের বদলে কাজে নিয়োজিত থাকবে একদল রোবট। এর ফলে বায়োপ্রযুক্তি খাতে ঘন্টার পর ঘন্টা সময়ের অপচয় রোধ করা সম্ভব হবে।

স্কাইনিউজ জানায়, এই ডিএনএ-কে বায়োলজিকাল ‘ডিভাইসে’ পরিণত করা হবে এবং অ্যান্টিবায়োটিক, ভ্যাক্সিন এবং জ্বালানী উৎপাদনে ব্যবহার করা হবে। নতুন এই পরীক্ষাগার কৃত্রিম জীববিদ্যা ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ইমপেরিয়াল কলেজ-এর পরমাণু-বায়োপ্রযুক্তি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক পল ফ্রিমাউন্ট বলেন, “আমরা এমন একটি স্ট্যান্ডার্ড, প্রায় ওপেন-সোর্স মডেল চাই, যেখানে কৃত্রিম জীববিদ্যা প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে জনগণ এই প্রতিষ্ঠানের তথ্যে সহজেই প্রবেশ করতে পারে।”

তিনি আরও বলেন, “কৃত্রিম জীববিদ্যা বায়োপ্রযুক্তিরই একটি বাড়তি অংশ। এর উদ্দেশ্য হলো জীববিদ্যাকে আমাদের কাজে লাগাতে আরও অনেক বেশি দক্ষতার সঙ্গে ব্যবহার করা। জীবকোষ ব্যবহারের মাধ্যমে বিভিন্ন জিনিস তৈরি ও প্রস্তুত এমনকি বায়োসেন্সর হিসেবে ব্যবহার করা।”

২০০০ সালে মানুষের জেনেটিক কোড আবিষ্কারের পর থেকেই, বিশেষত গত তিন বছর ধরে জিনে পরিবর্তনের নতুন পদ্ধতি সিআরআইএসপিআর ব্যবহারের মাধ্যমে কৃত্রিম জীববিদ্যা ক্ষেত্র অনেকটাই অগ্রসর হয়ে উঠেছে। সারা যুক্তরাজ্য জুড়েই নতুন নতুন কৃত্রিম জীববিদ্যা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে বলে জানিয়েছে স্কাইনিউজ।

অধ্যাপক ফ্রিমাউন্ট বলেন, “আমরা ৫০০০ বছর বা তারও বেশি সময় ধরে জীববিদ্যা ব্যবহার করে আসছি। তবে আমরা এখন যা করছি তা অনেক বেশি জটিল। আমরা আসলেই বায়োলজিক্যাল ব্যবস্থায় ডিজাইন ও প্রকৌশল শুরু করেছি। যা আমার মতে, একটি প্রাকৃতিক বিবর্তন, আবার একই সঙ্গে চারিত্রিক পরিবর্তন।”

এ ছাড়াও ঔষধ এবং দৈনন্দিন ব্যবহারের অতি জটিল পরমাণু আবিষ্কার ও উৎপাদনে একে ভবিষ্যত হিসেবে অভিহিত করেন তিনি।

অ্যারানেক্স-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ক্লোয়ি গুই অ্যালার্জিক প্রবণতাবিহীন চীনাবাদাম আবিষ্কারে সিআরআইএসপিআর ব্যবহার করছেন। তিনি স্কাই নিউজকে বলেন, “সিআরআইএসপিআর-এর অসাধারণ ব্যাপারটি হলো এটি আগে ব্যবহৃত প্রযুক্তিগুলোর চেয়ে অনেকটাই সহজ।” প্রসঙ্গত, যুক্তরাজ্যে শতকরা একজন মানুষ চীনাবাদামের প্রতি অ্যালার্জিক।

যুক্তরাজ্য সরকার কৃত্রিম জীববিদ্যাকে দেশটির প্রধান ৮টি প্রযুক্তির একটি হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। দেশটির ঐতিহ্যবাহী শিল্পগুলোতে ধ্বসের সম্মুখীন হওয়ার পরও কৃত্রিম জীববিদ্যায় যুক্তরাজ্য নেতৃস্থানীয় অবস্থান দখল করে রেখেছে বলে জানায় স্কাইনিউজ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর