প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় ৪২ কোটি টাকা!
প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় ৪২ কোটি টাকা!
২০১৬-০৪-০৭ ১৪:৪১:১১
প্রিন্টঅ-অ+


পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় ধরা হয়েছে আড়াই কোটি টাকার কিছু বেশি। চলমান অন্য প্রকল্পগুলোর প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জার ব্যয় এর নিচে। প্রস্তাবিত প্রকল্পগুলোর কোনোটিরই প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জার ব্যয় ৫ কোটি টাকার বেশি নয়। যদিও প্রস্তাবিত ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ প্রকল্পে এ বাবদ ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ৪২ কোটি টাকা, চলমান বা প্রস্তাবিত অন্যান্য মেগাপ্রকল্পের তুলনায় যা অস্বাভাবিক বেশি।

ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ প্রকল্প পরিচালকের জন্য একটি কার্যালয় থাকবে; যা সজ্জিত হবে পরিপাটিভাবে। আসবাব ছাড়াও কেনা হবে কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টার, ফটোকপিয়ার, ফ্যাক্স, ইন্টারনেট মডেম, টেলিফোন ও সেলুলার ফোনসেট। সব মিলিয়ে প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় হবে ৪২ কোটি টাকা— এমনটাই বলা হয়েছে ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের ব্যয় বিশ্লেষণে।

পরিকল্পনা কমিশনের তথ্যমতে, বর্তমানে চলমান বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে পরিচালকের অফিসসজ্জায় সবচেয়ে বেশি ব্যয় ধরা হয়েছে পদ্মা সেতু নির্মাণে। ঢাকা ও মাওয়ায় দুই অফিস মিলিয়ে প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় এ খাতে ব্যয় ধরা আছে ২ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর দ্বিতীয় কাঁচপুর, মেঘনা ও গোমতী সেতু নির্মাণে প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় ১ কোটি ৩১ লাখ টাকা। এছাড়া উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত প্রস্তাবিত মেট্রোরেল নির্মাণে এ খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৭ লাখ টাকা। শেষ হতে চলা ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন প্রকল্পের জন্য ঢাকা ও চট্টগ্রামে দুটি অফিসসজ্জায় ব্যয় হয়েছে মাত্র ১৫ লাখ টাকা। ৬০ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে টঙ্গী-ভৈরববাজার রেলপথ ডাবল লেন প্রকল্পে আসবাব কেনায়।

প্রস্তাবিত ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা চার লেন প্রকল্প পরিচালকের অফিসসজ্জায় ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ৫ কোটি টাকা। কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণে চট্টগ্রামে প্রকল্প পরিচালকের কার্যালয় নির্মাণ করবে সেতু বিভাগ। এর অফিসসজ্জায় ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত প্রকল্পে এ ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ১২ লাখ টাকা।

ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের ব্যয় বিশ্লেষণে দেখা যায়, প্রকল্প পরিচালকের জন্য শুধু আসবাবই কেনা হবে ১৫ কোটি টাকার। এর মধ্যে রয়েছে— টেবিল, চেয়ার, সোফা, আলমারি, সেলফ, এয়ার কন্ডিশনারসহ অন্যান্য আসবাব। অন্যান্য সরঞ্জাম কেনায় ব্যয় হবে আরো ১০ কোটি টাকা। এসব আসবাব ও সরঞ্জাম স্থাপন এবং প্রতিস্থাপনে খরচ হবে ১০ কোটি টাকা। এছাড়া রয়েছে অন্যান্য ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম।

আসবাব ও গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণে ব্যয় হবে ৫ কোটি টাকা। এগুলো ছাড়াও রেলওয়ের কর্মকর্তাদের জন্য ঠিকাদার অফিস কোনো গাড়ি ভাড়া করলে তার বিল পরিশোধ করতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

সূত্র জানায়, প্রকল্পটির আসবাব নিয়ে এরই মধ্যে প্রশ্ন তুলেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। এ খাতে ৪২ কোটি টাকা বরাদ্দের যৌক্তিক ব্যাখ্যাও চাওয়া হয়েছে।

এদিকে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) বৈঠকে ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ নির্মাণের বিভিন্ন খাত নিয়ে আপত্তি ওঠে। এর মধ্যে গাছপালার মূল্য ১০৮ কোটি ও অবকাঠামো বাবদ ১৯১ কোটি টাকার ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। প্রকল্পটির জমি অধিগ্রহণের জন্য বরাদ্দকৃত ব্যয়ের মধ্যে এ অর্থ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি জমি অধিগ্রহণে অদৃশ্য ব্যয় বাবদ ৫২ কোটি টাকা বাদ দেয়ার সুপারিশ করা হয়।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন বলেন, রেলপথ ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে এরই মধ্যে ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে। আর পিইসির সভার সিদ্ধান্তের আলোকে প্রকল্পটি পুনর্গঠন করা হচ্ছে।

ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে কেনা হবে ৪০টি গাড়ি। এজন্য ব্যয় হবে ২৬ কোটি ২০ লাখ টাকা। এগুলো নিবন্ধনে লাগবে আরো ৫ কোটি টাকা। গাড়িগুলোর জ্বালানি বাবদ ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ কোটি টাকা।

জানা গেছে, রেলওয়ের কর্মকর্তাদের জন্য ১২টি জিপ, ২০টি ডাবল কেবিন পিকআপ ও আটটি মাইক্রোবাস কেনা হবে। এগুলোর প্রতিটির দাম ধরা হয়েছে যথাক্রমে ৮৫ লাখ, ৬০ লাখ ও ৫০ লাখ টাকা। ১২টি জিপ ব্যবহার করবেন রেলওয়ের গ্রেড ২, ৩ ও ৪-এর কর্মকর্তারা। ডাবল কেবিন পিকআপের ১৫টি ব্যবহার করবেন রেলওয়ের গ্রেড ৫ ও ৮-এর কর্মকর্তারা। বাকি পাঁচটি প্রকল্পের কাজে ব্যবহার করা হবে। আর মাইক্রোবাসের দুটি রেলওয়ের প্রধান কার্যালয়ের কর্মকর্তারা ও বাকি ছয়টি প্রকল্পের সাইট অফিসের কর্মকর্তারা ব্যবহার করবেন। এর বাইরে রয়েছে পরামর্শকের জন্য বরাদ্দকৃত ১০৬ গাড়ি ও ৩০টি বাইক। এর একটি অংশও ব্যবহার করবেন রেলওয়ের কর্মকর্তারা। এ খাতে ব্যয় হবে ৯৬ কোটি টাকা।

তবে গাড়ির সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। গাড়ির সংখ্যা কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে সাম্প্রতিক বৈঠকে। এছাড়া পরামর্শকের জন্য বরাদ্দকৃত ১০৬টি গাড়ির দাম ও ধরনের ব্যাখ্যা চেয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। গাড়ির সংখ্যা কাটছাঁট হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালকও।

তথ্যমতে, রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সরাসরি রেল সংযোগ স্থাপনে ঢাকার গেণ্ডারিয়া থেকে মাওয়া হয়ে যশোর পর্যন্ত ১৬৯ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ হাজার ৭০২ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। অর্থাৎ কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় ২০০ কোটি টাকার বেশি। যদিও শিগগিরই শুরু হতে যাওয়া খুলনা-মংলা রেলপথ নির্মাণে কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় হচ্ছে ৪৪ কোটি ৬২ লাখ টাকা। ৮৬ কিলোমিটার রেলপথের এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮৩৭ কোটি ৪২ লাখ টাকা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ঢাকা-মাওয়া-যশোর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটিতে অপ্রত্যাশিত বেশকিছু ব্যয় ধরা হয়েছে। এর মধ্যে ব্যয় সমন্বয় খাতেই রয়েছে ৫ হাজার ১১ কোটি টাকা। এছাড়া আনুষঙ্গিক খাতে ব্যয় হবে ৩০০ কোটি টাকা। আর পরিবেশ সংশ্লিষ্ট খাতে আরো ৩০০ কোটি টাকা।

মো. আমজাদ হোসেন বলেন, শুধু রেলপথ নির্মাণেই ৬২৬ কোটি ৪৭ লাখ ডলার বা ৫০ হাজার ১১৭ কোটি টাকা ব্যয় প্রস্তাব করেছিল ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন (সিআরইসি)। গত অক্টোবরে এ প্রস্তাব দেয় প্রতিষ্ঠানটি। এর পর আলোচনার ভিত্তিতে রেলপথ নির্মাণ ব্যয় অর্ধেকে (৩১৩ কোটি ৮৮ লাখ ডলার) নামিয়ে আনা হয়। এছাড়া রেলওয়ের অন্যান্য প্রকল্পের ব্যয় এ প্রকল্পের কাছাকাছি রয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রকল্পের ব্যয়ের মধ্যে বায়ার্স ক্রেডিট (কঠিন শর্তের ঋণ) হিসেবে ২৪ হাজার ৭৪৯ কোটি ৫ লাখ টাকা দেবে চীন। বাকি ৯ হাজার ৯৫৩ কোটি ৬৮ লাখ টাকা সরবরাহ করবে বাংলাদেশ সরকার। আর জিটুজি ভিত্তিতে রেলপথটি নির্মাণ করবে সিআরইসি। তবে প্রকল্পের অর্থায়ন প্রস্তাব এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এমনকি প্রস্তাবটি চীন সরকারের কাছে পাঠানোও হয়নি। ফলে ২০১৬ সালে চীনের সঙ্গে চুক্তি সই হওয়ার কোনো সম্ভাবনাও নেই বলে মনে করে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)। এতে রেলপথ নির্মাণ পিছিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
(ইসমাইল আলী)

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিশেষ প্রতিবেদন এর অারো খবর