সব প্রথম শ্রেণির চাকরি শুরু নবম গ্রেডে
সব প্রথম শ্রেণির চাকরি শুরু নবম গ্রেডে
২০১৬-০৩-১১ ১২:২২:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+


প্রথম শ্রেণির চাকরিতে যোগদানের শুরুতে সবাই নবম গ্রেডে বেতন পাবেন। অর্থাত্ ক্যাডার, নন-ক্যাডার ও বিভিন্ন সংস্থায় সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্তরা নবম গ্রেডভুক্ত হবেন। তবে এর মধ্যে ক্যাডারভুক্তরা বাড়তি একটি ইনক্রিমেন্ট পাবেন। আর বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তাদের (সরকারি কলেজের শিক্ষক) টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেডের পরিবর্তে ৫০ শতাংশ অধ্যাপককে স্থায়ী পদোন্নতি দিয়ে গ্রেড-৩-এ উন্নীত করা হবে।

গতকাল সচিবালয়ে ‘বেতন বৈষম্য নিরসন সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির’ বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাহবুব আহমেদ ও জনপ্রশাসন সচিব ড. কামাল আবু নাসের চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও অর্থ সচিব মাহবুব আহমেদ সাংবাদিকদের সভার সিদ্ধান্তের কথা জানান।

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে তিনটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এর মধ্যে দুটি বিষয় একটু টেকনিক্যাল ধরনের। অষ্টম ও নবম গ্রেড-এ দুটি নিয়ে একটা সমস্যা ছিল। এখানে পরিবর্তন আনা হয়েছে।অর্থ সচিব মাহবুব আহমেদ এ বিষয়ে জানান, পে-ফিকসেশনের ক্ষেত্রে কেউ অষ্টম গ্রেডে, কেউবা নবম গ্রেডে চলে গিয়েছিলেন। ফলে একটা জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিল। এখন নবম গ্রেডটাকে এন্ট্রি পদ করা হয়েছে। প্রথম শ্রেণির ক্যাডার, নন-ক্যাডার কিংবা বিভিন্ন সংস্থায় যারা সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত সবাই একই স্কেলে বেতন পাবেন। তবে ক্যাডারভুক্তরা একটি ইনক্রিমেন্ট পাবেন বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, সরকারি চাকরিজীবীদের অষ্টম বেতন কাঠামোয় প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের প্রবেশ পদের বেতন নবম গ্রেডে ধরা হলেও ক্যাডার কর্মকর্তাদের বেতন ধরা হয় অষ্টম গ্রেডে। সপ্তম পে-স্কেলে প্রথম শ্রেণির ক্যাডার ও নন-ক্যাডার উভয় কর্মকর্তারাই চাকরিতে প্রবেশের সময় নবম গ্রেডে বেতন পেতেন।এ নিয়ে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার কর্মকর্তারা দীর্ঘদিন থেকেই আন্দোলন করে আসছিলেন। দাবি আদায়ে কর্মবিরতিও পালন করেন তারা। তবে সরকারের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে কর্মসূচি স্থগিত রয়েছে।সরকারি কলেজ শিক্ষকদের বিষয়ে অর্থ সচিব বলেন, এখানে শিক্ষকরা চতুর্থ গ্রেড থেকে তৃতীয় গ্রেডে উন্নীত হওয়ার ক্ষেত্রে আগে ৫০ ভাগ সিলেকশন গ্রেড পেতেন। এখন সিলেকশন গ্রেডের পরিবর্তে ৫০ ভাগ প্রমোশন দেওয়া হবে। প্রমোশন পেয়ে তারা ওপরের গ্রেডে যাবেন।

সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, তাদের কিছু কষ্ট আছে। ইতোমধ্যে তাদের সঙ্গে তিন সচিব (প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, অর্থ সচিব ও জনপ্রশাসন সচিব) বৈঠক করেছেন এবং বিষয়টি এখন প্রায় সমাধান হওয়ার পথে।

শুধু একটি বিষয়ে তিন সচিব এখনও তাদের সঙ্গে একমত হতে পারেননি। সেজন্য বেতন বৈষম্য নিরসন কমিটির আগামী বৈঠকে চার-পাঁচজন শিক্ষক প্রতিনিধি রাখা হবে। ওই বৈঠকেই বিষয়টি নিষ্পত্তি করা এবং এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে-বলে জানান মুহিত।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা অষ্টম বেতন কাঠামো নিয়ে আপত্তি জানিয়ে কর্মবিরতিতেও গিয়েছিলেন। পরে সরকারের আশ্বাসে কর্মসূচি স্থগিত করেন তারা।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

অর্থনীতি এর অারো খবর