ভার্চুয়াল রিয়েলিটি প্রযুক্তিতে মাদকাসক্তি নিরাময়
ভার্চুয়াল রিয়েলিটি প্রযুক্তিতে মাদকাসক্তি নিরাময়
২০১৬-০৩-০২ ০৩:১১:২৭
প্রিন্টঅ-অ+


সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব হাউজটনের এক গবেষণা প্রতিবেদন দেয়। তাতে বলা হয়েছে মাদকাসক্ত বিশেষ করে যারা হেরোইনে আসক্ত, তাদের চিকিৎসায় ভার্চুয়াল রিয়েলিটি প্রযুক্তির ব্যবহার বেশ কার্যকর। তাদের আসক্তি দূর করতে এটি সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

অনেকে ভাবতে পারেন এটা সাম্প্রতিক কোন ধারণা। কিন্তু না ১৯৩০-এর দশকে ফরাসি কবি অ্যান্তনিন আর্টাউড থিয়েটারে চরিত্র ও বিষয়ের মোহগ্রস্ততা বোঝাতে শব্দটি ব্যবহার করেন। পরবর্তীতে ট্রেনিং সিমুলেশন ও ভিডিও গেমে ভার্চুয়াল রিয়েলিটি বেশি ব্যবহার হয়েছে।

নব্বইয়ের দশকে ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার বিজ্ঞানীরা ভার্চুয়াল রিয়েলিটি থেরাপি নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়েরই ড. র্যালফ ল্যামসন দাবি করেন, তৃতীয় পক্ষের ভার্চুয়াল রিয়েলিটি ব্যবহার করে তিনি তার উচ্চতাজনিত ভীতি দূর করতে সক্ষম হয়েছেন। তার এ দাবির পরই এর উন্নয়ন নিয়ে বিভিন্ন গবেষণা শুরু হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ইউনিভার্সিটি অব হাউজটনের গবেষকরা মাদক সেবনকারীদের আসক্তি নিরাময়ে ভার্চুয়াল রিয়েলিটি থেরাপি (ভিআরটি) ব্যবহারের কথা জানালেন।

গবেষকরা দাবি করেছেন, হেরোইনে আসক্ত ব্যক্তিদের আসক্তি দূর করতে ভিআরটি সাহায্য করতে পারে। গবেষকরা আটটি অবলোহিত ক্যামেরা ব্যবহার করে থ্রিডি পরিবেশ তৈরি করেন, যেখানে চিকিৎসাধীন ব্যক্তি যেন মাদক গ্রহণের অনুভূতি নিতে পারে। এর মাধ্যমে তারা ওই ব্যক্তি মাদক গ্রহণের পর তার প্রতিক্রিয়া দেখতে পারেন। বাস্তবের চেয়ে এ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বেশি কার্যকর। গবেষকদের মতে, কোনো ব্যক্তির আসক্তি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পর্যবেক্ষণের জন্য বাস্তবের চেয়ে ভার্চুয়াল রিয়েলিটির মাধ্যমে সৃষ্ট পরিবেশ বেশি কার্যকর।

এ সম্পর্কে গবেষণার অন্যতম লেখক প্যাট্রিক বোর্ডনিক বলেন, ‘প্রচলিত থেরাপিতে রোগীর সঙ্গে আমরাও এক ধরনের ভূমিকা রাখি। কিন্তু এর প্রেক্ষিত হয় সম্পূর্ণ ভুল। তারা জানে, সেখানে থেরাপিস্ট রয়েছে এবং

কোনো মাদক নেই। আমাদের প্রয়োজন রোগীকে এমন পরিবেশের মধ্যে নেয়া, যেখানে সত্যিই তারা মনে করবে,

সেখানে মাদক রয়েছে এবং তা গ্রহণের হাতছানিও দিচ্ছে। এ রকম অবস্থায় প্রকৃত চিত্র স্পষ্ট হয়ে উঠবে এবং যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া যাবে।’

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বাস্থ্য এর অারো খবর