জ্বালানি তেলের মূল্য নির্ধারণে কাজ শুরু
জ্বালানি তেলের মূল্য নির্ধারণে কাজ শুরু
২০১৬-০২-২৬ ০০:৪৬:১৭
প্রিন্টঅ-অ+


বিশ্ববাজারের জ্বালানি তেলের মূল্যের সাথে তুলনা করে আমাদের দেশে দাম কমাতে মূল্য নির্ধারণের জন্য একটি নীতিমালা নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে বলে সংসদে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

জাতীয় সংসদ অধিবেশনে টেবিলে উত্থাপিত স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর (পিরোজপুর-৩) লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে জ্বালানি তেলের মূল্য পুনঃনির্ধারণের বিষয়টি সরকারের বিবেচনায় রয়েছে।

গত নভেম্বর ২০১৪ তে বিপিসির লাভ শুরু হয়। ঘাটতি পূরণের জন্য ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে ৫ হাজার ২৬৮ দশমিক ০৮ কোটি টাকা এবং চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জানুয়ারি, ২০১৬ পর্যন্ত সাত মাসে ৫ হাজার ৮শ ১০ দশমিক ৬৭ কোটি টাকাসহ সর্বমোট ১১,০৭৮ দশমিক ৬৩ কোটি টাকা বিভিন্ন দেনা পরিশোধ করা হয়েছে। এ ছাড়া পেট্রোবাংলাকে ৪৯৬ দশমিক ৬৩ কোটি টাকা পরিশোধের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে যাচ্ছে। এ অর্থ বাদে অবশিষ্ট অর্থ বিপিসির ব্যাংক হিসাবে স্থিতি হিসাবে রয়েছে। উল্লিখিত পরিমাণ ঘাটতি সমন্বয়ের পরেও সরকার প্রদত্ত ঋণ ২৬,৩৪৯ দশমিক ৮১ কোটি টাকা বকেয়া রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বিশ্ববাজারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে জ্বালানি তেলের মূল্য পুনঃনির্ধারণের বিষয়টি সক্রিয় বিবেচনায় রয়েছে। জ্বালানি তেলের মূল্য পরিবর্তনের সময় প্রধান প্রধান পণ্যসমূহের প্রত্যেকটির পরিবর্তন করা হয়। কারণ, প্রত্যেকটি জ্বালানি পণ্য পরস্পর সম্পর্কযুক্ত। তাই পরিবর্তন করা হলে কেরোসিন, ডিজেল, ফার্নেস অয়েল, অকটেন ইত্যাদি সবগুলোর মূল্য একই সাথে পরিবর্তন করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিশ্ববাজারের মূল্যের সাথে তুলনা করে আমাদের দেশে এর মূল্য নির্ধারণের জন্য একটি নীতিমালা নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে। প্রথমবারের মত এ ধরনের পদ্ধতি আরোপের পূর্বে এ বিষয়ে অন্যান্য সম্পূরক প্রভাবকগুলো আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।’

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

অর্থনীতি এর অারো খবর