শিকড়ের সন্ধানে বাংলাদেশে ছুটে এলেন ডাচ নাগরিক সুতানা
শিকড়ের সন্ধানে বাংলাদেশে ছুটে এলেন ডাচ নাগরিক সুতানা
২০১৬-০২-০৫ ২২:৩৩:২৬
প্রিন্টঅ-অ+


‘যেখানে আমার জন্ম, যে মাটিতে আমার বেড়ে উঠা, সেটাই আমার পরিচয়। আর এ কথাটাই সত্য প্রমাণ করে আবারো শিকড়ের সন্ধানে নেদারল্যান্ড থেকে চট্টগ্রামে ছুটে আসলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ডাচ নাগরিক সুতানা।’

৩৭ বছর পর স্বজনের খোঁজে ১ ফেব্রুয়ারি স্বামী ইউবি জ্যাকব ও সন্তান নোয়া আবেদ নাবিলা জ্যাকবসকে নিয়ে নেদারল্যান্ড থেকে মাতৃভূমি বাংলাদেশে আসেন সুতানা ভ্যান ডি লিস্ট। তিনি সাংবাদিকদের বললেন, প্রথম দিকে ডাচদের সঙ্গে ভাষাগত উচ্চারণ নিয়ে প্রতিদিন প্রশ্নের সম্মুখিন হতাম। তবে ভিন্ন পরিবেশে বেড়ে উঠলেও স্বামী ও সন্তানদের নিয়ে বর্তমানে সুখে আছি।
তবে, পূর্বপুরুষদের সন্ধান না পেলে ১২ ফেব্রুয়ারি নেদারল্যান্ড ফিরে যাবেন তিনি।
বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ‘স্লোব বাংলাদেশ’ নামক সংগঠনের সাবেক কর্মকর্তা মো. ইসমাইল শরীফ সুতানার উপস্থিতিতে বলেন, ১৯৭৫ সালে চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারিতে জন্মগ্রহণ করেন সুলতানা। পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত দাদা-দাদির কাছে বেড়ে উঠেছিলেন তিনি। এরপর ১৯৭৯ সালে সুলতানাকে কেয়া ও ক্রিস নামক এক ডাচ দম্পতির কাছে বিনা শর্তে দত্তক হিসেবে তুলে দেন তার দাদি রাহিমা খাতুন। আর তখন সুলতানা থেকে তার নাম হয় সুতানা ভ্যান ডি লিস্ট। শৈশবের স্মৃতি বলতে আছে চট্টগ্রামের দোহাজারি এলাকার রেললাইন আর ব্যস্ত বাজার।
ইসমাইল শরীফ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, দীর্ঘ ৩৭ বছর পর সুতানা তার স¦ামী ও সন্তানকে নিয়ে বাংলাদেশে এসেছেন তার আত্মীয়-স্বজনদের খুঁজে বের করতে। কিন্তু আত্মীয়-স্বজন কারোরই পরিচয় তিনি জানেন না। তার কাছে প্রথম শ্রেণীর ম্যজিস্ট্রেট কর্তৃক দেয়া একটি হলফ নামা আছে আর তাতে তার মা-বাবার মৃত বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে হলফনামায় উল্লেখিত চট্টগ্রামের দোহাজারিতে তার পূর্বপুরুষদের ঠিকানা বলা হলেও তা আসল ঠিকানা কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবুও পূর্বপুরুষদের ফিরে পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদি এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ডাচ নাগরিক। এ জন্য সকলের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন সুতানা।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

ফিচার এর অারো খবর