আজ শুরু হচ্ছে আইইবি’র ৫৬তম কনভেনশন
আজ শুরু হচ্ছে আইইবি’র ৫৬তম কনভেনশন
২০১৬-০২-০৫ ২২:২৪:০২
প্রিন্টঅ-অ+


আজ থেকে শুরু হচ্ছে দেশের পেশাজীবীদের অন্যতম বৃহৎ প্রতিষ্ঠান ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউিশন বাংলাদেশ-আইইবি’র ৫৬তম কনভেনশন। সকাল সাড়ে দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্ভোধন করবেন। এবারের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ‘হচ্ছে টেকসই উন্নয়নে প্রকৌশলীরা’

আইইবি’র কাউন্সিল হলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সবুর। জাতীয় বেতনকাঠামো নিয়ে আন্দোলনরত প্রকৌশলীরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবারও তাদের দাবি-দাওয়া তুলে ধরবেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সিনিয়র তিন সচিবের নেতৃত্বাধীন কোর কমিটির সঙ্গে বৈঠকের পর তারা অনেকটা আশাবাদী। বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা পেশাজীবীদের আন্দোলনের বিষয়ে সঠিক পদক্ষেপ নেবেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

বিশ্বের ১১টি দেশসহ সারাদেশের প্রায় পাঁচ হাজার প্রকৌশলী কনভেনশনে যোগদানের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। গত দু’দিন ধরে কাউন্সিলের নানা কাজ শুরু হলেও মূল সেশন শুরু হবে শনিবার থেকে। আব্দুস সবুর বলেন, কনভেনশনের জাতীয় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ, বিশিষ্টজনের উপস্থাপনা ও আলোচনায় বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রেক্ষাপটে একটি নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করতে জাতিসংঘ ঘোষিত এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।

৭ ফেব্রুয়ারি কনভেনশনের সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয়নেতা বেগম রওশন এরশাদ।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, বর্তমানে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলোতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অযাচিত হস্তক্ষেপ ও খবরদারি বৃদ্ধি পেয়েছে। এগুলো বন্ধ না হলে এসব সংস্থায় কর্মরত প্রকৌশলী ও পেশাজীবিদের কর্মোদ্যম ব্যহত হবে, বাড়বে ক্ষোভ এবং পরিণামে নিম্নগামী হবে উৎপাদনশীলতা। কোনোক্রমেই এ সকল খাত পরিচালনায় আমলাতন্ত্রের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অংশগ্রহণ ও নিয়ন্ত্রণের সুযোগ রাখা উচিত নয়।

সংবাদ সম্মেলনে আইইবি’র প্রেসিডেন্ট কবির আহমেদ ভূঞা বলেন, রাজউকসহ প্রকৌশল সেক্টরগুলোর যেসব ডেস্কে দুর্নীতি হয় তার সঙ্গে প্রকৌশলীরা জড়িত নয়।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় বেতনস্কেলে প্রকৌশলীদের মধ্যে ক্যাডার-নন ক্যাডার বৈষম্য দূর করা, বেতনস্কেলে সিলেকশন গ্রেড ও টাইম স্কেল পূনর্বহাল, ইউএনও’কে ক্ষমতায়ন করে জারি করা অফিস স্মারক বাতিল, আন্তঃক্যাডার বৈষম্য দূর করতে সকল ক্যাডার ও সার্ভিসে পদোন্নতির সমান সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে সুপার নিউমারি পদ সৃষ্টি, সকল ধরনের প্রেষণে নিয়োগ ও কৃত্যপেশাভিত্তিক প্রশাসন প্রতিষ্ঠার দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আইইবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট খন্দকার মনজুর মোর্শেদ, শাহাদাৎ হোসেন শেলী, নূরুজ্জামান, সহকারী সাধারণ সম্পাদক এসএম মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, প্রকৌশলী মো. মোজাম্মেল হক, শাহাদাৎ হোসেন শিবলু, ঢাকা সেন্টারের প্রেসিডেন্ট মেসবাহুর রহমান টুটুল, সেক্রেটারি আমিনুর রশীদ চৌধুরী মাসুদ, দি ইঞ্জিনিয়ার্স সম্পাদক শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন প্রমুখ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর